1. [email protected] : ProtikhonBarta :
শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ০৫:০১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন মানবাধিকার চেয়ারম্যান মোঃ সোবাহান বেপারী প্রবাসে বাঙালি নারীর এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত-শেখ জেসমিন জাহিদ। কবি গবেষক মুহাম্মদ শামছুল হক বাবু ও কবি ইশরাক আরা লাইজু নিমনির “অনুভবের কথামালা” বইয়ের মোড়ক উন্মোচন। সাতগাঁও গণমূল্যায়ন পরিষদের পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠন,আবেদ সভাপতি,আলমগীর সাধারন সম্পাদক,লিটন সাংগঠনিক। দুই বাংলার জনপ্রিয় স্যাটেলাইট চ্যানেল এক্সপ্রেস নিউজ টিভির গাজীপুর জেলা প্রতিনিধি আবেদ আহমেদ। সাংবাদিক কন্যা আদিবা সুলতানা আফরিন এর শুভ জন্মদিন আজ নওগাঁর সাপাহারে মাল্টা চাষে ব্যাপক সম্ভাবনা: বাজারজাত নিয়ে বিপাকে চাষীরা! শ্রীমঙ্গলে শীতার্ত ও অসহায় মানুষের পাশে তানিয়া আক্তার হবিগঞ্জে অস্ত্রসহ দুই ডাকাত আটক কারাগারে প্রেরণ নওগাঁর সাপাহারে রক্তদাতা সংগঠনের শীতবস্ত্র বিতরণ
নোটিশ:
সাংবাদিক নিয়োগ চলছে.. যোগাযোগঃ 01719-763530, 01713-685053 ইমেল করুনঃ [email protected]

শ্রীমঙ্গলের সাতগাঁও চা বাগানে বিদ্যুৎ বিল এর টাকা অতিরিক্ত নেওয়ার অভিযোগ চা শ্রমিকদের।

  • প্রকাশিত : সোমবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২০
  • ২২৭ বার পড়া হয়েছে

সুদীপ কৈরী।
শ্রীমঙ্গলের সাত গাঁও চা বাগানে বিদ্যুৎ বিল এর টাকা অতিরিক্ত নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে সাধারণ চা শ্রমিকদের।
মৌলভীবাজার জেলা শ্রীমঙ্গল উপজেলার সাত গাঁও চা বাগানের সাধারণ চা শ্রমিকদের বহুদিন যাবত বিদ্যুৎ বিল এর টাকা অতিরিক্ত নেওয়া হচ্ছে বলে উনারা জানান।

উক্ত বিষয়ে সাত গাঁও চা বাগানের সম্পাদক সুদীপ কৈরী বলেন, বিদ্যুৎ বিল এর অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার সমস্যা নতুন নয় বহুদিন আগ থেকেই চা শ্রমিকরা এই সমস্যা ভুগছে।তাই আমি বাগান ব্যবস্থাপক এর সাথে কথা বলেছি যাতে প্রত্যেক চা শ্রমিকদের নিজের নামে বিদ্যুৎ মিটার করা হয়। তিনি আরো বলেন আমি নিজেও বিদ্যুৎ বিল নিয়ে বহুদিন যাবত অতিরিক্ত টাকা দিতে হয়েছে কিন্তু যখন থেকে নিজের নামে বিদ্যুৎ মিটার নেওয়া হয়েছে তখন থেকে আর আমার অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল এর টাকা দিতে হয় না।

সাত গাঁও চা বাগানের ব্যবস্থাপক রফিকুল ইসলাম বলেন, আমি উক্ত বিষয়ে কিছু দিন আগে জিএম সাহেব এর সাথে কথা বলেছি চা শ্রমিকদের বিদ্যুৎ বিল যাতে উনারা উনাদের নিজে দিতে পারে সেই বেবস্থা নেওয়া জন্য। তাছাড়া আরো আমি আমার সহকারী ব্যবস্থাপক ও ইলেকট্রিশিয়ানকে চা শ্রমিকদের বিদ্যুৎ বিল কি কারণে অতিরিক্ত আসছে এবং কিসের জন্য অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার হচ্ছে তা যাচাই করে আমার কাছে রিপোর্ট দেওয়া জন্য বলেছি । তিনি আরো বলেন রিপোর্ট সঠিক ভাবে আমার কাছে আসলেই আমি দ্রুত এর ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

উক্ত বিষয়ে সাধারণ চা শ্রমিকরা বলেন যে বিদ্যুৎ বিল এর অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার সমস্যা আমাদের নতুন না বহুদিন যাবত থেকেই আমরা উক্ত সমস্যায় ভুগছি, প্রতি মাসে তিন সপ্তাহে আমাদের বিদ্যুৎ বিল দিতে হয়। কোন কোন সপ্তাহে বিদ্যুৎ বিল আমাদের কারো একহাজার কারো ১২০০ আবার কারো ১৫০০ এমন কি ৫০০, ৬০০ টাকাও হয়ে থাকে। এই অবস্থায় মাঝে মাঝে সারা সপ্তাহের টাকা দিয়েও বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা সম্ভব হয় না, পরিশেষে বাসা থেকে সম্পুর্ন মুলধন দিয়ে বিদ্যুৎ বিল আমাদের পরিশোধ করতে হয়।

উক্ত বিষয়ে আরেক জন মহিলা চা শ্রমিক নাম বলতে অনিচ্ছুক বলেন আমিও বিদ্যুৎ বিল নিয়ে বহুদিন যাবত বহু সমস্যায় ভুগেছি এমন কি ১০০০/১২০০ টাকাও আমায় বিল দিতে হয়েছে।যখন থেকে আমি আমার নিজের নামে বিদ্যুৎ মিটার নিয়েছি তখন থেকে আর এই ধরনের কোন সমস্যা আমার হয় না ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন